রাজশাহীতে সাবেক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিনিধি : রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানা বুলনপুর এলাকায় মো নজরুল ইসলাম নামের সাবেক পুলিশ সদস্য তার স্ত্রীকে কুপিয়ে আহত করে গায়ে কেরোশিন ডেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেস্টার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে নগরীর বুলনপুর তার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহত মোছা নাছিমা বেগম (৫০) বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধিন রয়েছে। এ ঘটনার পরে আহত গৃহবধূর স্বামী মো নজরুল ইসলাম পালিয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানান গেছে, রাজশাহী মহানগরীর বুলনপুর এলাকার মো নজরুল ইসলাম রাজশাহী জেলা পুলিশের সাবেক হাবিলদার মেজর। র্দীঘ ৩২ বছর ধরে নজরুল ও তার স্ত্রী নাছিমা বেগম দম্পত্তি সুখে শান্তিতে ঘর সংসার করে আসছেন। তাদের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।

গত মাস খানেক আগে তার স্ত্রী নাছিমাকে না জানিয়ে মোছা বিউটি খাতুন (৩২) নামের এক তরুনিকে গোপনে বিয়ে করেন। সেই স্ত্রীকে নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সকালে বুলনপুর বাড়িতে উঠেন। এসময় জানতে পারে নাছিমা বেগম যে তার স্বামী ২য় বিয়ে করেছে। সেই দিন থেকে নাছিমার স্বামী সাবেক পুলিশ সদস্য নজরুল ইসলাম তাকে তালাক দেয়ার জন্য চাপদেন। নাছিমার সাথে তার দুই মেয়ে কে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে বলে নজরুল। গত বৃহস্পতিবার থেকে নাছিমা ও তার দুই মেয়েকে কোন প্রকার খাবার দেয়া বন্ধকরে দেয় তার স্বামী ও তার নব নতুন স্ত্রী বিউটি।

শনিবার নাছিমা বেগম তিন তলায় খাবার নেয়ার জন্য গেলে তার স্বামী ও তার ২য় স্ত্রী বিউটি তার উপরে হামলা চালায়। এসময় ঘরে থাকা বঠি দিয়ে তার ডান হাতে কোপ দেয় এবং ব্যপক মারপিট ও শারীরিক নির্যাতন করে। এসময় গুরুতর আহত হয়ে পড়লে নাছিমার গায়ে কেরোশিন ডেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেস্টা করে তার স্বামী ও নতুন স্ত্রী। নাছিমার চিৎকারে তার দুই মেয়ে ও পাড়া প্রতিবেশিরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসি সি ওয়ার্ডে ভর্তি করে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকা জনক বলে জানিয়েছেন কর্মরত চিকিৎসক। এ ঘটনার পরে নজরুল ইসলাম ও তার নতুন স্ত্রী বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

রামেক হাসপাতালের ওসিসির কর্মরত চিকিৎসক জানান, তার সারা শরীরে মারপিটের দাগ। বুকে আঘাত পেয়েছে ও ডান হাত জখম। এ ছাড়া তার শরীর থেকে কেরোশিন তেলের গন্ধ পাওয়া গেছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকা জনক বলে জানান তিনি।

গৃহবধূর নাছিমার ছেলে মো নাদিম হোসেন জানান, র্দীঘদিন যাবত আমার মাকে অমানবিক নির্যাতন করে আসছে আমার বাবা সাবেক পুলিশ সদস্য নজরুল ইসলাম। এসব নিয়ে আমি প্রতিবাদ করায় আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। বেশ কিছু দিন আগে বুলনপুরের বাড়িটি আমার মায়ের কাছে থেকে জোর করে লিখে নিয়েছে আমার বাবা। এসব বিষয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর বরাবর একাধিক বার অভিযোগ দিয়েও প্রতিকার পায়নি। এ ঘটনায় রাজপাড়া থানায় একটি মামলার প্রস্তুুতি চলছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয় আরএমপি রাজপাড়া থানার ওসি শাহদাত হোসেন জানান, এমন একটি ঘটনা শুনেছি। কেউ অভিযোগ দিলে তদন্ত করে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

আরও খবরঃ

Leave a Comment