তানোরে এডিবি প্রকল্পের কাজে অনিয়মের অভিযোগ

তানোর প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাস সংকটের সুযোগ নিয়ে রাজশাহীর তানোর উপজেলায় এশিয়া উন্নয়ন ব্যাংক’র (এডিবি) প্রকল্পের কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুয়া প্রকল্প তৈরি ও টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে লটারি ছাড়াই ভাগ বাটোয়ারা করে টাকা আত্মসাত করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য এক কোটি ২৩ লাখ ৮৪ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয় এডিবি। অর্থবছরের শুরুর দিকে বরাদ্দ আসলেও করোনা ভাইরাসের লকডাউনের দোহাই দিয়ে কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। তবে জুন থেকে কাজ শুরু হলেও তা চলছে নামে মাত্র। সেই কাজে হচ্ছে অনিয়ম।

স্থানীয় কয়েকজন ঠিকাদার জানান, প্রকল্পের কাজের জন্য ৫০ লাখ টাকার টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলেও লটারি না করে এলপিআরে থাকা হিসাবরক্ষক, প্রকৌশলীসহ বেশকিছু কর্মকর্তা বিভিন্ন ঠিকাদারের নামে কাজ করছে। এলপিআরে থাকা আজগর এখনো নিয়মিত অফিস করছেন। জিজ্ঞাসা করলে মো. আজগর জানান, স্যারের নির্দেশে অফিস করছি। তবে কাজের বিষয়ে কোন কথা বলেননি তিনি।

জানা গেছে, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি ২০১৯-২০ অর্থবছরে কলমা ইউপির বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেঞ্চ সরবরাহের জন্য এক লাখ টাকা, আজিজপুর বড় পুকুর পাকা রাস্তায় প্রটেকশন ওয়াল নির্মাণে এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা, নড়িয়াল দক্ষিণ সিংড়া পুকুরের ধারে প্রটেকশন ওয়াল নির্মাণে এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা চুক্তি হয়।

অথচ প্রকল্প সভাপতি সংরক্ষিত ইউপি সদস্য হামিদা বেগম এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানান। একইভাবে উপজেলার অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন, খেলার মাঠ সংস্কার, দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ প্রকল্পসহ ভুয়া প্রকল্প তৈরি এবং নিয়ম বহির্ভূত প্রকল্প সভাপতি বানিয়ে লুটে নেওয়া হচ্ছে এডিবি প্রকল্পের টাকা।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, এডিবির প্রকল্পের কাজের ব্যাপারে আমি কিছুই বলতে পারব না।

সার্বিক বিষয়ে জানতে তানোর উপজেলার অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেনের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আরও খবরঃ

Leave a Comment